ফ্রান্সে করোনা সংক্রমণ উদ্বেগজনক হারে বৃদ্ধি পাওয়াতে আসছে কঠিন লকডাউন

0
1896
ফ্রান্সে করোনা সংক্রমণ উদ্বেগজনক হারে বৃদ্ধি পাওয়াতে আসছে কঠিন লকডাউন ( অনলাইন ছবি )

▪︎ফ্রান্স বাংলা ডেস্ক: মহামারী করোনা ভাইরাস সংক্রমণ উদ্বেগজনক হারে বাড়তে থাকায় ফ্রান্সে ফের তৃতীয়বারের মত লকডাউন হতে পারে।  <span;>বিকল্প সকল পন্থা  অকার্যকর , এমনকি চলমান কারফিউও । আজ ২৭শে  জানুয়ারী বুধবার দুপুরে ফ্রান্সের ডিফেন্স কাউন্সিল বৈঠক হয় , সেখানে ফ্রান্সে করোনা পরিস্থিতির সার্বিক দিক নিয়ে আলোচনা হয়। ফ্রান্স স্বাস্থ্যবিভাগের রিপোর্ট মতে ফ্রান্সে করোনা পরিস্থিতি অবনতি হচ্ছে । করোনার নতুন জাত বৃটিশ ব্যারিয়ান্ট ফ্রান্সে দ্রুত ছড়াচ্ছে । আক্রান্ত ও মৃত্যুর হার বাড়তেছে খুবই উদ্বেগজক হারে ।

সকল দিক বিবেচনা করা হয়েছে । ফ্রান্স মিডিয়া franceblu.fr রিপোর্টে বলা হয়েছে আজ ২৭ জানুয়ারী বুধবার দুপুরে প্যারিসে ফ্রান্সের ডিফেন্স কাউন্সিল বৈঠক হয়। বৈঠকে কাউন্সিল সদস্যরা একমত হয় যে ফ্রান্সে করোনা প্রতিরোধে চলমান কারফিউ অকার্যকর পন্থা । এমনকি বিকল্প কোনো পন্থাও তেমন নেই। তাই ফ্রান্স সরকারকে লকডাউনে যেতেই হচ্ছে। ডিফেন্স কাউন্সিল বৈঠকে বলা হয় গত ২৪ ঘন্টায় বিশ্বে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ১৮ হাজার ১০৯ জন । ২০ থেকে ২৬ শে জানুয়ারী পর্যন্ত বিশ্বে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ১০ লাখ ১ হাজার ৩৬৬ জন । যা প্রতিদিন গড়ে মৃত্যু ১৪ হাজার ।

ফ্রান্সেও করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা প্রতিদিন বাড়তেছে । ফ্রান্সে করোনায় এ পর্যন্ত মোট ৭৪ হাজার ১০৬ জনের মৃত্যু হয়েছে  । ডিফেন্স কাউন্সিল ফ্রান্সে তৃতীয় ধাপের লকডাউনে যাবার পক্ষে ইংগিত দেন। এ বিষয়ে বিএফএমটিভির রিপোর্টে বলা হয়, আজ বুধবার ডিফেন্স কাউন্সিল বৈঠকের পর ফ্রান্স প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাখো বলেন লকডাউনে যাবার আগে আরো পর্যালোচনা করা হোক। লকডাউন এড়ানোর জন্য সর্বোচ্চ বিবেচনা করা দরকার ।

বর্তমানে ফ্রান্সে সন্ধ্যা ৬টা থেকে কারফিউ বহাল আছে।  কিন্তু গত সাতদিনে সংক্রমণের সংখ্যা প্রতিদিনই বাড়ছে। গড়ে প্রতিদিন সেখানে আক্রান্ত হচ্ছেন কমপক্ষে ২০ হাজার মানুষ। এ অবস্থায় ফরাসি প্রধানমন্ত্রী জ্যাঁ ক্যাসটেক্স বলেছেন, অবস্থার আরো অবনতি হলে তিনি বিলম্ব না করে বিধিনিষেধ আরো কঠোর করবেন।

এ ব্যাপারে ফ্রান্সের সাইন্টিফিক কাউন্সিলের সভাপতি “জিন ফ্রসেস” বিএফএমটিভিকে বলেন ফ্রান্সে তৃতীয় ধাপের লকডাউনে যেতেই হবে । এবং ফ্রান্স প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাখো আগামী শুক্রবার বা শনিবার নাগাদ লকডাউন ঘোষণা দিতে পারেন । তা প্রাথমিক তিন সপ্তাহের হতে পারে। তিন সপ্তাহ পর ফ্রান্সে করোনার সার্বিক পরিস্থিতির পর্যালোচনা করে লকডাউন সময় বাড়ানো বা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত হবে ।

অন্যদিকে করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে গণপরিবহন এড়িয়ে চলার পরামর্শ দিয়েছেন ফ্রান্সের চিকিৎসকরা। ফ্রেঞ্চ একাডেমি অব ডক্টরস শুক্রবার এ ব্যাপারে নির্দেশিকা জারি করেছে।  এতে বলা হয়, ট্রামওয়ে, বাস বা অন্যান্য গণপরিবহন যেখানে সামাজিক দূরত্ব মেনে চলা সম্ভব হয় না, সেগুলো এড়িয়ে চলা উচিত। গত মে মাস থেকে মাস্ক ব্যবহারের কথা বলা হলেও ভ্রমণকারীরা প্রায়শই ফোনে কথা বলার সময় মাস্ক আলগা করে বা সরিয়ে ফেলেন। তাই কথা না বলার বিষয়টিও উল্লেখ করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here