ফ্রান্সের তুলুজ শহরে স্থায়ী শহীদ মিনার নির্মাণ, শুভ উদ্বোধন ২১শে ফেব্রুয়ারি

0
557
ভাষা শহীদদের স্মরণে তুলুজ শহরে নবনির্মিত স্থায়ী শহীদ মিনার

▪︎ফ্রান্স বাংলা ডেস্ক: মাতৃভাষা রক্ষার দাবিতে প্রাণ দেয়া শহীদদের স্মরণে ও প্রবাসে নতুন প্রজন্মের কাছে ভাষা শহীদদের চেতনা ছড়িয়ে দিতে বাংলাদেশী কমিউনিটি অ্যাসোসিয়েশন তুলুজ, ফ্রান্সের উদ্যোগে ও তুলুজের মাননীয় মেয়র জন লুক মুডেনক এবং সিটি কাউন্সিলের সহযোগিতা ও অংশিদারিত্বে নির্মিত হলো বহু কাঙ্ক্ষিত ১৯৫২ এর ভাষা শহীদ স্মৃতি স্তম্ভ ।

তুলুজ বাংলাদেশি কমিউনিটি অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ও আয়েবার সহ-সভাপতি ফখরুল আকম সেলিমের দীর্ঘ প্রায় এক দশকের অব্যাহত প্রচেষ্টার ফলে ফ্রান্সের মাটিতে প্রথম এ শহীদ মিনারটি নির্মিত হল।

শহীদ মিনার নির্মাণের উদ্যোক্তা ফখরুল আকম জানান, ফ্রান্সে দ্বিতীয় বৃহৎ প্রবাসী অধ্যুষিত শহর তুলুজে অবশেষে দীর্ঘ কাঙ্খিত শহীদ মিনার মাথা উঁচু করে দাঁড়াল।

যাদের অনুপ্রেরণায় এই স্থায়ী মিনার নির্মাণে সহযোগিতা পেয়েছেন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও শ্রদ্ধা জানান তিনি। তাদের মধ্যে অন্যতম ফ্রান্সের বাংলাদেশের সাবেক রাষ্ট্রদূত ও ইউনেস্কোর উপদেষ্টা তোজাম্মেল হক টনি।

যার বিশেষ ভূমিকা রয়েছে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস স্বীকৃতিতে। এছাড়াও স্থায়ী মিনার নির্মাণে সহযোগিতা করেন সাবেক রাষ্ট্রদূত বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে নতুন রাষ্ট্রদূত এম শহিদুল ইসলাম, তুলুজ সিটি মেয়র জন লুক মোদানক, ডেপুটি মেয়রসহ আয়েবা মহাসচিব কাজী এনায়েত উল্লাহ ও তুলুজ বাংলাদেশি কমিউনিটির নেতারা।

আগামী ২১ শে ফেব্রুয়ারি ২০২১ আন্তর্জাতিক মাতৃ ভাষা দিবসে উদ্ধোধন হবে ঐতিহাসিক এই শহীদ মিনার ! উদ্ভোধন করবেন তুলুজের মাননীয় মেয়র মহোদয় ।   সকাল ১০ টায় Parc Claifront,  Bellefontaine,  Toulouse এ এই উদ্বোধনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে ।

বৈশ্বিক করোনা পরিস্থিতির কারনে, ফ্রান্সে করোনা বিধিনিষেধ থাকায় সবাইকে আমন্ত্রণ জানাতে পারছি না বলে দু:খ প্রকাশ করে বাংলাদেশ কমিউনিটি এসোসিয়েশন তুলুজের সভাপতি ফকরুল আকম সেলিম বলেন, পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আগামীতে সবাইকে নিয়ে একসাথে একুশ উদযাপন করবো ইনশাল্লাহ ।

প্রবাসীরা মনে করছেন এরকম একটি শহীদ মিনার ফ্রান্সের মতো দেশে স্থায়ীভাবে নির্মাণের মাধ্যমে সারাবিশ্বে বাংলা ভাষাকে মাথা উঁচু করে দাঁড়ানোর একটা  আত্ম-পরিচয়ের জায়গা তৈরিতে সহায়ক ভূমিকা রাখবে।

এই  শহীদ মিনারটি স্থাপনের মাধ্যমে বাংলাদেশ এবং ফ্রান্সের মধ্যে বন্ধুত্ব সম্পর্ক আরও গভীর হবে এবং এখানে প্রবাসীরা নিজের জাতীয়  সত্তাকে উপস্থাপন করতে পারবে।  মহান ভাষা শহীদদের স্মরণে স্থায়ী  এই শহীদ মিনারের যাত্রা যদিও ফ্রান্স থেকে শুরু হয়েছে আস্তে আস্তে ইউরোপের বিভিন্ন দেশে গড়ে উঠবে বলে প্রত্যাশা করেছেন অনেক প্রবাসী।

▪︎ নিচের লিংকে ক্লিক করে আমাদের Facebook পেইজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন — 👉 https://www.facebook.com/w.FranceBangla/

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here