করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধিতে ফ্রান্সের বর্ডার বন্ধ ঘোষণা, নতুন নির্দেশনা জারি

0
2780
করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধিতে ফ্রান্সের বর্ডার বন্ধ ঘোষণা, নতুন নির্দেশনা জারি

▪︎ফ্রান্স বাংলা ডেস্ক: করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধিতে ফ্রান্সে লকডাউন এর পরিবর্তে  নতুন নির্দেশনা জারি করা হয়েছে ।
ফ্রান্স প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাখোর সভাপতিত্বে প্যারিসের এলিসি প্রাসাদে গত ২৯শে জানুয়ারী শুক্রবার ডিফেন্স কাউন্সিলের বিশেষ বৈঠক হয় ।

ফ্রান্সে করোনার নতুন জাত বৃটিশ ব্যারিয়ান্ট এবং আফ্রিকান ব্যারিয়ান্ট দ্রুত ছড়াচ্ছে । গত বুধবার ডিফেন্স কাউন্সিল বৈঠকে ফ্রান্সে তৃতীয় লকডাউনের সিদ্ধান্ত হলেও ২৯শে জানুয়ারী শুক্রবারের বৈঠকে আপাতত লকডাউন দেয়া হয়নি । তবে পরিস্থিতি বিবেচনায় করোনার সার্বিক চিত্র আরো পর্যবেক্ষণের সিদ্ধান্ত হয় । এতে নতুন বেশকিছু সিদ্ধান্ত নেয়া হয় ।

▪︎ আগামী ৩১শে জানুয়ারী রাত থেকে ফ্রান্সের সকল বর্ডারগুলো বন্ধ করে দেয়া হবে ।
▪︎বাংলাদেশসহ ইউরোপীয় ইউনিয়নের বাইরের দেশগুলোর নাগরিকরা পরবর্তি নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত ফ্রান্সে প্রবেশ করতে পারবেনা । (অতি জরুরী কারণ থাকলে সেটা বিবেচ্য) ।
▪︎ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশগুলোর নাগরিকরা ফ্রান্স প্রবাসীদের প্রবেশ করতে হলে করোনার নেগেটিভ টেস্ট সার্টিফিকেট বাধ্যতামূলক। এবং PCR টেস্ট বাধ্যতামূলক ।

▪︎ ১ ফেব্রুয়ারী সোমবার থেকে ফ্রান্সে যেসকল শপিংমল মার্কেট, দোকানপাট ২০ হাজার বর্গমিটারের বেশি আয়তনের সেগুলো পরবর্তি নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত বন্ধ থাকবে ।
▪︎করোনা প্রতিরোধে ফ্রান্স চলমান কারফিউ চলবে লকডাউন স্টাইলে |
▪︎রাস্তাঘাট, পাবলিক প্লেসে করোনার স্বাস্থ্যবিধি পালনে বাধ্য করতে নজরদারী কড়াকড়ি করা হবে ।

▪︎ইউরোপীয় ইউনিয়নের বাইরে এশিয়া, আফ্রিকা, উওর ও দক্ষিণ আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়ার নাগরিকরা ফ্রান্স প্রবেশ করতে পারবেনা | তবে অতি জরুরী ক্ষেত্রে নিয়ম শীতিলযোগ্য |
▪︎মাস্ক বাধ্যতামূলক পড়তে হবে । ৬ জনের বেশি একত্রে জড়ো হওয়া যাবেনা ।
▪︎করোনা প্রতিরোধে কারফিউ আইন বা স্বাস্থ্যবিধি নিয়ম ভঙ্গ করলে ১৩৫ ইউরো জরিমানা । ▪︎ফ্রান্সে করোনা নিয়ন্ত্রণে না আসা পর্যন্ত ফ্রান্স সরকারের এই নিয়মগুলো বাধ্যতামূলক ।
▪︎ স্কুল খোলা থাকবে ।

ফ্রান্স প্রধানমন্ত্রী জিন কাসটেক্স ২৯শে  জানুয়ারী শুক্রবারের বক্তব্যে আরো বলেন প্রয়োজনে পরিস্থিতি বিবেচনায় যখন যে সিদ্ধান্ত নিতে হয় ফ্রান্স সরকার তখন সে সিদ্ধান্তই নিবে ।

ফ্রান্সে এ পর্যন্ত করোনা ভাইরাস আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন  ৭৫ হাজার ৬২০ জন এবং বর্তমানে চিকিৎসাধিন আছেন মোট  ২৮ লাখ ৫৪ হাজার ৬৯৩ জন।  তাদের মধ্যে গুরুত্বর অসুস্থ আছেন ৩ হাজার ১৩০ জন ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here